চট্টগ্রাম, রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২ , ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনকে অত্যাধুনিক কামান দিচ্ছে জার্মানি

প্রকাশ: ৬ মে, ২০২২ ১২:০০ : অপরাহ্ণ

ইউক্রেনকে সাতটি স্বয়ংচালিত অত্যাধুনিক কামান দিচ্ছে জার্মানি। শুক্রবার (৬ মে) হাউইটজার নামের এসব অস্ত্র সরবরাহের ঘোষণা দিয়েছেন জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী ক্রিস্টিন ল্যামব্রেখ্ট।

হাউইটজার একটি দূরপাল্লার আর্টিলারি অস্ত্র। সাধারণত এটা ৩০ কিলোমিটার দূরে গোলা ছুড়তে পারে। তবে আরও উন্নত গোলা ব্যবহার করে এর পাল্লা বাড়ানো যায়।

আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাকের ওপর বসানো এ কামান ব্যবস্থাকে প্যানজারহবিটজেন ২০০০ আর্টিলারি সিস্টেমও বলা হয়। অত্যাধুনিক এই অস্ত্র কীভাবে চালাতে হয় সে বিষয়ে ইউক্রেনীয় সেনাদের প্রশিক্ষণও দেওয়া হচ্ছে।

শুক্রবার ইউক্রেনের সীমান্তবর্তী দেশ স্লোভাকিয়া সফরে যান জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী ল্যামব্রেখ্ট। পূর্ব-ইউরোপের দেশটিতে বেশ কয়েক ডজন জার্মান সেনা মোতায়েন রয়েছে। এদিন এসব সেনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

এরপর সংবাদ সম্মেলনে ইউক্রেনকে সাত হাউইটজার কামান ব্যবস্থা সরবরাহের ঘোষণা দেন তিনি। তবে করে নাগাদ অস্ত্রগুলো সরবরাহ করা হতে পারে তা জানাননি জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। রাশিয়াকে মোকাবিলায় সরাসরি সেনা না পাঠালেও অস্ত্র, গোলাবারুদ ও প্রয়োজনীয় যুদ্ধ সরঞ্জাম সরবরাহ করছে পশ্চিমা দেশগুলো। প্রথম দিকে অস্ত্র দিতে অস্বীকার করলেও সম্প্রতি সেই অবস্থান থেকে সরে এসেছে জার্মানি।

এর আগে গত মাসে ইউরোপের আরেক দেশ পোল্যান্ডও ইউক্রেনে হাউইটজারসহ বিভিন্ন সামরিক সরঞ্জাম পাঠিয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ইউক্রেনে ডজনখানেক যুদ্ধযান, টুএসওয়ান কারনেশন সেলফ প্রপেলড হাউইটজার, ড্রোন, গ্র্যাড মাল্টিপল রকেট লঞ্চার ও পিওরুন (থান্ডারবোল্ট) ম্যান-পোর্টেবল এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম পাঠিয়েছে পোল্যান্ড।

এদিকে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনের সার্বিক পরিস্থিতি সরেজমিনে দেখতে জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক কিয়েভ সফর করবেন বলে জানিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর চ্যান্সেলর ওলাফ শলজ। বৃহস্পতিবার (৫ মে) বার্লিনে চেক প্রজাতন্ত্রের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এক বৈঠক শেষে তিনি বলেন, রুশ বাহিনীর গোলার আঘাতে তছনছ হয়ে যাওয়া ইউক্রেনের সার্বিক পরিস্থিতি সরেজমিনে দেখতে ও দেশটির ভবিষ্যত পুনর্গঠন নিয়ে কর্মপরিকল্পনা ঠিক করতে শিগগিরই কিয়েভ সফর করবেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এরপর ইউক্রেন সফর করতে পারেন স্বয়ং জার্মান চ্যান্সেলর শলজ। জার্মানিতে নিযুক্ত ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত ইতোমধ্যে বলেছেন, জার্মান চ্যান্সেলর নিজেও শিগগিরই কিয়েভ সফর করবেন। তবে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কিয়েভ সফরের সময়সূচি বিষয়ে এখন বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি।

এদিকে রাশিয়ার বৈদেশিক গোয়েন্দা প্রধান অভিযোগ করেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ও পোল্যান্ড ইউক্রেনকে নিজেদের প্রভাবের আওতাধীন একটি স্থানে পরিণত করতে ষড়যন্ত্র করছে। রাশিয়ার ফরেন ইন্টেলিজেন্স সার্ভিস (এসভিআর)-এর প্রধান সের্গেই নারিশকিন এই অভিযোগ তুলেন। তবে পোল্যান্ড এ অভিযোগকে কিয়েভের সহায়তকারীদের মধ্যে অবিশ্বাস তৈরির জন্য অপপ্রচার হিসেবে উল্লেখ করেছে।

সের্গেই নারিশকিন অপ্রকাশিত গোয়েন্দা তথ্যের কথা উল্লেখ করে দাবি করেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো মিত্র পোল্যান্ড ইউক্রেনের পশ্চিমাংশে পোলিশ নিয়ন্ত্রণ পুনঃপ্রতিষ্ঠার ষড়যন্ত্র করছে।

তিনি বলেন, রাশিয়ার ফরেন ইন্টেলিজেন্স সার্ভিসের পাওয়া গোয়েন্দা তথ্য অনুসারে, ওয়াশিংটন ও ওয়ারশ ইউক্রেনে তাদের ঐতিহাসিক ভূখণ্ডে পোল্যান্ডের কঠোর সামরিক ও রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে।

Print Friendly and PDF