চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২ , ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ধরা পড়ে গেল ইরানের গোপন তথ্য-নথি পাচারকারী ৩ মোসাদ গোয়েন্দা

প্রকাশ: ২১ এপ্রিল, ২০২২ ৭:০০ : পূর্বাহ্ণ

ইসরাইলের কুখ্যাত গুপ্তচর সংস্থা মোসাদের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ইরান। ইরানের গোয়েন্দাবিষয়ক মন্ত্রণালয় বুধবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। খবর রয়টার্সের।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ সিস্তান-বালুচিস্তান থেকে মোসাদের ওই ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে, তারা সবাই ইসরাইলি না-কি অন্য দেশের নাগরিক তা স্পষ্ট করা হয়নি। গ্রেফতারের পর তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এক বিবৃতিতে সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত ইরানের গোয়েন্দাবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় শাখা জানায়, গ্রেপ্তার ‘মোসাদ এজেন্টরা’ ইরান থেকে গোপনীয় তথ্য ও নথি পাচারে জড়িত।

প্রসঙ্গত, রাষ্ট্র হিসেবে ইসরায়েলের প্রতিষ্ঠার ১৯ মাসের মাথায় দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ডাভিড বেন গুরিয়ন ‘মোসাদ’ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। সেটা ছিল ১৯৪৯ সাল। তবে ইসরায়েল প্রতিষ্ঠার আগেই যেসব ইহুদি নিষিদ্ধ সংগঠন সংগ্রাম চালাচ্ছিল, তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহ করতে যে কাঠামো গড়ে উঠেছিল, তাকে ‘মোসাদ’-এর পূর্বসূরি বলা চলে।

হিব্রু ভাষায় ‘মোসাদ’ শব্দের অর্থ ইন্সটিটিউট। আনুষ্ঠানিকভাবে এই বৈদেশিক গোয়েন্দা সংস্থার নাম ‘দ্য ইন্সিটিটিউট অফ ইনটেলিজেন্স অ্যান্ড স্পেশাল অপারেশনস’।

চরম গোপনীয়তার বেড়াজালে মোড়া ‘মোসাদ’ সম্পর্কে খুব কমই জানা যায়। এমনকি এই সংস্থার সদর দপ্তরেরও কোনো ঠিকানা বা টেলিফোন নম্বর নেই। কর্মীসংখ্যাও কারো জানা নেই। ইসরায়েলের আইন অনুযায়ী শুধুমাত্র সংস্থার প্রধানের নাম প্রকাশ করা যায়। ‘মোসাদ’-এর ওয়েবসাইটে সামান্য কিছু তথ্য ও যোগাযোগের জন্য ফর্ম রয়েছে। এমনকি ‘মোসাদ’-এর হয়ে কাজ করতে চাইলে একটি ফর্মও রয়েছে।

 

Print Friendly and PDF