চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর ২০২২ , ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পিরোজপুরে স্বামীকে বাঁচাতে এসে দায়ের কোপে গুরুতর আহত স্ত্রী : হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ৫:২১ : পূর্বাহ্ণ

পিরোজপুর প্রতিনিধি:
পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার সয়না গ্রামে জমি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে কাজল বেগম নামের এক নারীকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। রবিবার সকালে সয়না গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানাযায়, জমির সিমানা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে একই এলাকার প্রতিবেশী রিপন মীর,জুয়েল মীর ও তাজেল মীর সহ প্রায় সাত জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্র নিয়ে রিয়াজ সরদার নামের এক যুবকের উপর হামলা চালায়। এসময় রিয়াজের স্ত্রী কাজল বেগম স্বামীকে বাঁচাতে এলে তিনিও হামলার শিকার হন। হামলায় দায়ের কোপে গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা কাজল বেগমকে উদ্ধার করে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
রিয়াজ সরদার বলেন, আমাদের ৩২ শতক জমি জোরপূর্বক দখল করে রাখার চেষ্টা চালায়।  রবিবার সকালে কাউকে না জানিয়ে আমাদের জমির সিমানায় পিলার স্থাপন করার চেষ্টা চালালে আমি বাধা দিলে আমাকে ৭-৮ জন মিলে মারধর শুরু করে। আমাকে বাঁচাতে আমার সহধর্মিণী আসলে তাকেও দারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত করে।সে এখন হাসপাতালে ভর্তি। এঘটনায় থানা অভিযোগ দিয়েছি,আমরা এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।
তবে হামলার অভিযোগ অস্বিকার করে ঘটনার প্রধান অভিযুক্ত রিপন মীর বলেন, আমরা কোনো হামলা করিনি। উল্টো রিয়াজরা হামলা করছে। আমাদেরও পক্ষ থেকে একজন আহত,সে হাসপাতালে ভর্তি।
এঘটনায় রঘুনাথপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আবু সাইদ জানান, আমি দুই পক্ষের মারামারির একটা খবর শুনেছি। ইতিমধ্যে তারা দুইপক্ষই থানায় অভিযোগ দিয়েছে। আমি থানার ওসি সাহেবের সাথে কথা বলেছি এবং তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি।
এবিষয়ে কাউখালী থানার ওসি মোঃ বনি আমিন বলেন, সয়না গ্রামে দুই পক্ষের হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে এবং দুই পক্ষেরই দুই জন আহত হয়েছে। একজন কাউখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও আরেক জন পিরোজপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে বলে জানা গেছে। থানায় ইতিমধ্যে এঘটনায় দুটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে,তদন্তের মাধ্যমে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly and PDF