চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর ২০২২ , ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চলতি দশকেই চীনের সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত হবে অস্ট্রেলিয়া : ভবিষ্যদ্বাণী

প্রকাশ: ২৮ এপ্রিল, ২০২২ ৮:৩৭ : পূর্বাহ্ণ

চলতি দশকের শেষ দিকে চীনের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে অস্ট্রেলিয়া। এমনই সম্ভাবনা ব্যক্ত করে ভবিষ্যদ্বাণী দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার একজন শীর্ষস্থানীয় পররাষ্ট্র নীতি বিশেষজ্ঞ।

নিউজ ডট কম ডট এইউ-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই বিশেষজ্ঞের নাম ম্যালকম ডেভিস। তিনি অস্ট্রেলিয়ান স্ট্র্যাটেজিক পলিসি ইন্সটিটিউটের (এএসপিআই) একজন সিনিয়র বিশ্লেষক। তার ভাষ্যমতে, চীন ও তাইওয়ান সংঘাতে জড়ালে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য অস্ট্রেলিয়াও ওই যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে।

নিউজ ডট কম ডট এইউ-এর পডকাস্টকে ডেভিস বলেন, আপনাদের জন্য আমার কাছে একটি খবর আছে। চীন সম্পর্কে যেসব ধারণা পাওয়া যায় সেসব ধারণা অনুযায়ী আজ না হোক কাল তাইওয়ানে হামলা চালাবে চীন। এমনটা হলে সেই যুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ার জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা ৭০ থেকে ৮০ শতাংশের বেশি।

এই সম্ভাবনা সম্পর্কে ম্যালকমের যুক্তি হলো, চীন-তাইওয়ান যুদ্ধে জড়ালে যুক্তরাষ্ট্র তাইওয়ানকে সমর্থন করবে। ঠিক সে জন্যই অস্ট্রেলিয়াকেও তাইওয়ানকে সমর্থন করতে হবে। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধিতা করা অস্ট্রেলিয়ার জন্য অকল্পনীয়। এভাবেই চীনের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে চীন।

ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর দুই মাসে বিশ্ব যখন একটি থমথমে উত্তেজনার মধ্যে দিন পার করেছ ঠিক তখনই ভয়ঙ্কর এই ভবিষ্যদ্বাণীটি করা হলো।

এরইমধ্যে কদিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রকে উপেক্ষা করে চীনের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে সলোমন দ্বীপপুঞ্জ। এই চুক্তি অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়ার পাশেই সামরিক ঘাঁটি স্থাপন করতে পারবে চীন। ফলে চুক্তিটি আঞ্চলিক উত্তেজনাকে আরও উসকে দিয়েছে।

মূলত ডেভিসের এই ভবিষ্যদ্বাণী তাইওয়ানকে ঘিরে সৃষ্ট উত্তেজনার সঙ্গে জড়িত। অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে দ্বিগুণ জনসংখ্যার দেশ চীনের একটি গণতান্ত্রিক দ্বীপ হলো এই তাইওয়ান। দ্বীপটি নিজেদের চীন থেকে আলাদা করে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি চায়।

অন্যদিকে এশিয়ার প্রধান পরাশক্তি চীন তাইওয়ানকে নিজের অংশ মনে করে এবং যে কোনো উপায়ে দ্বীপটির পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিতে চায়। এ বিষয়ে অনেক পর্যবেক্ষকের মত হলো ২০৪৯ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের শততম বার্ষিকীর আগেই তাইওয়ানে হামলা চালাবেন দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

Print Friendly and PDF