চট্টগ্রাম, শনিবার, ২৮ মে ২০২২ , ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পৃথিবীর যেকোনো লক্ষ্যবস্তু এখন রাশিয়ার কব্জায়, পশ্চিমারা নাম দিয়েছে ‘২য় শয়তান’

প্রকাশ: ২১ এপ্রিল, ২০২২ ৫:১৬ : পূর্বাহ্ণ

ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরুর পর সম্প্রতি নতুন এক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি রাশিয়া। সারমাট নামে অন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণ করেছে দেশটি।

আলজাজিরা, দ্য ন্যাশনাল নিউজ, রয়টার্স, আরটিসহ অন্যান্য সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, বুধবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন নিজেই এ খবর দিয়েছেন।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, সেনাবাহিনীকে অভিনন্দন জানিয়ে পুতিন বলেন, ‘পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম এই হাতিয়ার ক্রেমলিনের শত্রুদের হামলা বলার আগে দু’বার ভাবতে বাধ্য করবে। কারণ পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তের যে কোনও বিন্দু এখন এর পাল্লার মধ্যেই।’

বিশেষ এই সারমাট ক্ষেপণাস্ত্রকে পশ্চিমারা ‘দ্বিতীয় শয়তান’ বলে আখ্যা দিয়েছে। এমনিতেই রাশিয়ার পরবর্তী প্রজন্মের ক্ষেপণাস্ত্রের মধ্যে রয়েছে ‘কিনঝাল’ কিংবা ‘অ্যাভানগার্ড’ হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র। সেই তালিকা আরও ভারী করলো নতুন ক্ষেপণাস্ত্র সারমাট।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সারমাটের সফল উৎক্ষেপণটি সম্পন্ন হয়েছে উত্তর রাশিয়ার প্লেসেটস্ক কসমোড্রোমে। তাদের দাবি, সারমাট পৃথিবীর যেকোনো লক্ষ্যে নির্ভুল নিশানায় আঘাত হানতে অব্যর্থ। রাশিয়ায় বসে কেবল একটি সুইচ চেপেই হামলা চালানো যাবে পৃথিবীর যে কোনো স্থানে।

এর ফলে রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্রভান্ডার আরো সুসংগঠিত হলো বলেও মন্ত্রণালয় সূত্রে দাবি করা হয়েছে। ২০০ টন ওজনের এই ক্ষেপণাস্ত্রকে ধরতে পারবে না কোনো রাডার বলেও দাবি করা হয়েছে।

ইউক্রেন যুদ্ধে প্রথমবারের মতো কিনঝাল ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করার কথা গত মাসেই জানিয়েছিল মস্কো। ইউক্রেনীয় বাহিনীর অস্ত্রগুদাম ধ্বংস করে দেয়া হয় ওই ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে।

এক টেলিভিশন ভাষণে বুধবার পুতিন বলেন, ‘আমি সারমাট অন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণে আপনাদের অভিনন্দন জানাই।’ পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘এর ফলে আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর যুদ্ধ ক্ষমতা আরো পোক্ত হবে। যা বহিঃশত্রুর আক্রমণ প্রতিহত করতে আমাদের আরো মনোবল জোগাবে।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘আক্রমণাত্মক ভাষণ দিয়ে আমাদের দেশের বিরুদ্ধে জনমত তৈরির চেষ্টা যারা করছেন, সাবধান। রাশিয়াকে আক্রমণ করার আগে এর পর থেকে নিশ্চয়ই আপনাদের দু’বার ভেবে দেখতে হবে।’

Print Friendly and PDF