চলতি বছরে চট্টগ্রাম বিভাগের মধ্যে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিকে ভিক্ষুকমুক্ত প্রথম জেলা হিসাবে ঘোষণা করতে কাজ শুরু করেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ। এই লক্ষ্যে ইতিমধ্যে ভিক্ষুকদের তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে এবং প্রণয়নকৃত তালিকা অনুযায়ী এইসব ভিক্ষুকদের পূর্ণবাসনের কারযক্রম শুরু হয়েছে। রাঙামাটি জেলাকে ভিক্ষুকমুক্ত জেলা হিসাবে গড়ে তোলার জন্য সামর্থ্যবান সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাকে ভিক্ষুকমুক্ত জেলা হিসাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সভায় এই তথ্য জানানো হয়। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান সভায় সভাপতিত্ব করেন।

স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ আবু শাহেদ চৌধুরী, নজরুল ইসলাম, সমাজসেবা বিভাগের উপ পরিচালক নজরুল ইসলাম, রাঙামাটি পৌরসভার প্যানেল মেয়র জামাল উদ্দিন, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান কাজী নজরুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন। সভায় ভিক্ষুক পূর্ণবাসন কমিটির সদস্যসহ বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের প্রধানগন এবং বিভিন্ন বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালকগন উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয় রাঙামাটিতে জরিপে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী চারশত ভিক্ষুক আছে এসব ভিক্ষুকদের পূর্ণবাসনে সহায়তার জন্য রাঙামাটিতে কর্মরত সকল সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাদের একদিনের বেতনের অংশ এই খাতে জমা দিবেন।

পাশাপাশি ভিক্ষুকদের পূর্ণবাসনের লক্ষ্যে সমাজের বিত্তবান লোকজনদের কাছ থেকে সহায়তা গ্রহণ করা হবে। তিনি এখানে কর্মরত বিভিন্ন এনজিওদের মাধ্যমে ভিক্ষুকদের পূর্ণবাসনের লক্ষ্যে ক্ষুদ্র-ক্ষুদ্র প্রকল্প গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক আহবান জানান।

সভায় রাঙামাটিতে ভিক্ষুকমুক্ত জেলা হিসাবে প্রচারণা কার্যক্রমকে জোরদার করনের লক্ষ্যে শহরের প্রবীন ব্যক্তিত্ব সাবেক পৌর মেয়র কাজী নজরুল ইসলাম এবং সাংবাদিক ও সমাজ সেবক মোঃ মোস্তফা কামালকে শুভেচ্ছা দূত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

চট্টগ্রাম বিভাগের প্রথম ভিক্ষুকমুক্ত জেলা হবে রাঙামাটি